সরাসরি প্রধান সামগ্রীতে চলে যান

পোস্টগুলি

May 31, 2018 থেকে পোস্টগুলি দেখানো হচ্ছে

তিন

পরনের বেণী যশোরের ঘাট। আড়তে বন্দী
খালি সব সাদা। কাদা লেখা যথা
অমর তপন সহনে
আপন বসতে কিছু ধাঁধা খেদ। সাথে মিতা তারও অহবেদ্।
রাখা আছে মাঠ। বিলিতি কূপণ। কাঁচা কিছু ফল
ধবধবে মন
শহর ভুবনে কাঁসর বচনে বেছে বোনা ঘাস। মাটি আর বাস
ফেলে আসা মনে এখনও

শেষ কবে শোনা। আরো অরহৈ দেনা। বধন বহনে মূরতি শীতল
বিষ! আধাআধি সেতো বোধ্য

প্রসাদ পাগল উঠানে আকুন্ঠ একা উদাসী। রাই জাগছে


                                                     ।।অহনা সরকার।।



এক

দোলনে দ্যোদুলী মোহনে সহলি
ঘনাইছে ঘরদ্বারে
পাড় ওপারের মাঝিবর লয়
গানে গানে তেষা মদীয় সহায়
বিহনে নলদী কতিপয় শিষ
এ মধ্য ভুবন ডালে
মদাইয়া বাঁশি পাখি সব রয়
কাঁপনে বাতাস থরথর
বোঝেনা মাটির এ মন দহন
কাঁকণে সহিছে বিদর

অতপর ঘন তমসা জটল। চুম্বন মুছে বিদায়ী
ছেঁড়া চোখ পানে উধারি কূলায়
নিভিছে বিশদ
নিকুঞ্জ সব।

লাজধরা সেথা হততে একেলা। বেনুবন ছায়
দিবাতে নিশিথ। ভীষ্ম

                                    ।।অহনা সরকার।।